বাংলাভাষার জনপ্রিয় ব্লগ বানিয়ে অনলাইনে ইনকাম করবেন যেভাবে

0

নিশ্চয়ই আপনার মধ্যে সৃষ্টিশীল কিছু প্রতিভা আছে। আপনি লিখতে চান,কিংবা ছবি তুলতে ভিডিও করতে পছন্দ করেন। গল্প লিখতে পারেন। আপনি হয়তো জানেন না আপনার মধ্যে কোন কোন প্রতিভা লুকিয়ে আছে।তাই আপনার মধ্যে ব্লগ বা ওয়েব সাইট বানানোর একটা প্রচন্ড আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এই সাইট দিয়ে আপনি অনলাইনে আয়/ইনকাম করতে পারেন। যেটি আপনি ঘুমে থাকলেও আপনাকে আয় দিতে থাকবে।

আজকাল ব্লগ বানানো অনেক সহজ এবং সোজা ব্যাপার। কারণ, আজ আমরা অনেক সহজে blogger.com বা WordPress software দ্বারা একটি personal ব্লগ বানাতে পারি।

হ্যা গুগলে ব্লগ আপনি নিজেই কারো সাহায্য না নিয়েই বানাতে পারবেন। কেবল, আপনার পদক্ষেপগুলো ভালো করে বুঝতে হবে। ধীরে ধীরে সব সুন্দর ও চমৎকারভাবে মোডিফাই করতে পারবেন।মজার ব্যাপার হলো আজকাল বাংলা ব্লগেও গুগল বিজ্ঞাপন দেয়।সে জন্য ডলারে পেমেন্টও করে থাকে।

How to create a blog in blogger in Bangla ?

বাংলা ভাষার জনপ্রিয় একটি ব্লগ বানিয়ে অনলাইনে আয় করবেন যেভাবে

তবে WordPress থিম দিয়ে ব্লগ বানাতে একটু ঝামেলা পোহাতে হয় এবং তাতে ব্লগ খোলার নিয়ম অল্প আলাদা আর তাতে আপনার কিছু টাকা খরচ করতে লাগবে। কিন্তু, Google এর blogger দ্বারা আপনি ফ্রীতে কোনো টাকা খরচ না করেই ব্লগ খুলতে পারবেন। তাই, এই আর্টিকেল টাতে আমি আপনাদের, Blogger.com ব্যবহার করে কিভাবে ফ্রিতে ব্লগ বানানোর ব্যাপারে আলোচনা করবো ।

মজার ব্যাপার হলো ব্লগার ডটকম এ আপনি যে বিষয়ের ওপর ব্লগ তৈরির জন্য সব কিছু প্রস্তুত পাবেন।তবে কয়েকদিন সময় লাগতে পারে যাতে দিন দিন সুন্দরভাবে বানানো যায়।ব্লগার ডটকম দ্বারা তৈরি ব্লগ দিয়ে হাজার হাজার টাকা কামনো কোন ব্যাপারই না।গুগল একটি বিশ্ববিদ্যালয় এবং এটি মানুষের প্রতিভা বিকাশের জন্য সব রকম সুযোগ তৈরি করে রেখেছে।শুধু ধৈয্য ধরবেন,ধীরে সুস্থ মাথায় ধীরে ধীরে একটার একটা কাজ করে যাবেন।খালি, ধর্য্য রাখবেন এবং লেগে থাকবেন এর বাইরেও নিজের কাজের সাথে সাথে blogging এর বিষয়ে শিখতে থাকবেন। এতে আপনিও success হতে যেতে পারবেন।

এখানে ব্লগ বানানোর জন্য আপনার কেবল একটি Google এর Gmail একাউন্টের প্রয়োজন হবে এবং আপনি একটি একাউন্টেই অনেকগুলি ব্লগ বানিয়ে নিতে পারবেন। সাবধান বেশি ব্লগ বানিয়ে সময় অপচয় করবেন না আমার মত।যে বিষয় দেখি সে বিষয়ের ওপর ব্লগ বানিয়ে ফেলবেন না। কারণ আপনি সব সময় ওগুলোতে পোস্ট দিতে পারবেন না। আর পোস্ট দিতে না পারলে সেগুলো কোন জনপ্রিয়তা পাবে না। না পেলে বিজ্ঞাপন থেকে আয়ও হবে না।সুতরাং বেশি ব্লগ খামাকা কেন তৈরি করবেন।

আপনার যদি জিমেইল একাউন্ট আছে তাহলে আপনিও একটি ব্লগ ব্লগারে বানাতে পারবেন। আর,যদি আপনার জিমেইল একাউন্ট নেই তাহলে জেনেনিন – Gmail একাউন্ট বানিয়ে নিন।

Blogger এ আপনি ফ্রীতেই ব্লগ বানাতে পারবেন। আপনার কোনোরকম খরচ নেই। বরং ফ্রি ব্লগে গুগুল উল্টো আপনাকে তাদের adsense এর বিজ্ঞাপন দিয়ে টাকা আয় করার সুযোগ করে দেবে।

তাহলে দেরি করে কি লাভ নেই।

কিভাবে ব্লগারে ব্লগ তৈরী করবো ? (ব্লগ খোলার নিয়ম)

Blogger এ ব্লগ বানানোর জন্য আপনি laptop বা computer ব্যবহার করতে হবে এবং তাতে internet connection থাকাটা জরুরি।এবং,আমি আগেই বলেছি যে ব্লগ বানানোর জন্য আপনার একটি Gmail বা Google একাউন্টের প্রয়োজন হবে।

ওপরে বলা জিনিষগুলি তৈরি থাকলে, আমি নিচে আমি বলা steps গুলি follow করে ব্লগারে নিজের একটি ব্লগ বানিয়ে নিতে পারবেন।

তাহলে চলেন, এখন নিচে আমরা ব্লগ খোলার নিয়ম গুলি জেনেনেই।

স্টেপ ১. Google account লগইন করুন

সবচে আগেই আপনার নিজের computer বা laptop থেকে Blogger.com ওয়েবসাইটে যেতে হবে।

Login to blogger account.
ওয়েবসাইটে যাওয়ার পর আপনি একটি dashboard দেখবেন বা ব্লগারের home page দেখবেন।

এখন আপনি সোজাসোজি, “Create your blog” বলে একটি লিংক বা বটন দেখবেন সেখানে ক্লিক করুন।

“Create blog” বাটন এ ক্লিক করার পর আপনি Google account login পেজ দেখবেন।

লগইন details দিন
Account login পেজে আপনি নিজের জিমেইল আইডি এবং password দিন আর Google একাউন্টে লগইন করুন।

মনে রাখবেন, আপনার জিমেইল একাউন্টে লগইন করা মানেই blogger একাউন্টে লগইন করা। আপনার আলাদা ভাবে ব্লগারে লগইন বা signup করতে হবেনা।

স্টেপ ২. ব্লগার profile name সেট করুন
এখন জিমেইল একাউন্ট দিয়ে ব্লগারে লগইন করার পর আপনি ব্লগারে login হয়ে যাবেন এবং প্রথমেই আপনাকে profile name set করতে বলা হবে।

এখন আপনার করতে হবে কি, নিচে “Display name” বক্সে একটি profile name দিতে হবে।আপনি যেকোনো নাম দিতে পারেন যেমন আমি দিয়েছি “সবুজ”.মনে রাখবেন আপনার এখানে দেয়া profile name টি আপনার ব্লগে লেখা আর্টিকেলে দেখানো হবে। মানে এই profile name দিয়েই আপনার আর্টিকেল গুলি publish বা প্রচার করা হবে আপনার ব্লগে।তাহলে এখন একটি ভালো profile name দিন এবং নিচে “Continue to blogger” button এ ক্লিক করুন।

স্টেপ ৩. Blogger dashboard থেকে ব্লগ বানান
এখন পরের পেজে আপনি নিজের ব্লগার dashboard দেখবেন।আপনার ব্লগার একাউন্টে একটাও ব্লগ বানানো না হওয়ার জন্য আপনাকে নিচে “create new blog” বলে একটি button বা লিংক দেখানো হবে।
যেখানে আপনাকে ক্লিক করতে হবে।

স্টেপ ৪. নতুন ব্লগের বিস্তারিত দিন

এখন আপনি নিজের কম্পিউটার স্ক্রিনে কিছু option দেখবেন যেমন “title”, “address”, “theme”.
সেই option গুলি আপনার নতুন ব্লগের সাথে জড়িত।

Blogger এ ব্লগ বানানোর আগে আপনার এই ৩ টি option ভালো করে ফিলাপ করতে হবে।

Title – এই জায়গায় আপনার নিজের বানানো ব্লগের বিষয়ে এক লাইনে কিছু লিখতে হবে।একে ব্লগের টাইটেল বলা হয়। যেমন আমি লিখেছি, সৈয়দ সোলতা ট্রাস্ট
Address – এই ভাগে আপনাকে নিজের ব্লগার ব্লগের URL address সেট করতে হবে।আপনি যেকোনো একটি URL নাম দিয়ে সেট করতে পারবেন।
কিন্তু মনে রাখবেন আপনার দেয়া address উপলব্ধ (available) থাকলে আপনি সেটা ব্যবহার করতে পারবেন।

দেয়া Url address উপলব্ধ বা available থাকলে আপনাকে “this blog address is available” বলে লিখে দেয়া হবে।এনাহলে,আপনাকে অন্য একটি address দিতে হবে।
যেমন আমি-syedsulatantrust.blogspot.com ব্লগ করে ছি।
এখন আপনি theme বলে একটি option দেখবেন যেখানে আপনি অনেক রকমের theme দেখবেন।থিম (theme) মানে হলো design. আপনি নিজের ব্লগের জন্য যেমন theme বেছেনিবেন আপনার ব্লগ দেখতে ঠিক তেমন লাগবে।
তাহলে, আপনি দেয়া theme গুলির মধ্যে যেটা ভালো লাগে সেটা নিজের ব্লগের জন্য select করে নিন।

এখন সবকিছু করার পর নিচে ডানদিকে থাকা “create blog” অপশনে ক্লিক করেদিন।

স্টেপ ৫. SKIP Google domain অপশন

এখন, পরের পেজে আপনি একটা option বা box দেখবেন যেখানে “Google domain” লিখা থাকবে।

এখন আপনি find a domain বাক্সে নিজের ব্লগার ব্লগের জন্য top level domain যেমন in, com, info বা org domain search করে register করতে পারবেন।

মনে রাখবেন এতে আপনার কিছু টাকা domain কিনার জন্য দিতে লাগতে পারে।

তাহলে আপনি যদি চান তাহলে নিজের ব্লগের জন্য top level domain এখান থেকে রেজিস্টার করতে পারবেন। আর আপনি যদি এখান থেকে domain রেজিস্টার করতে না চান বা পরে ডোমেইন নিতে চান তাহলে “No thanks” লিংকে ক্লিক করুন।

মনে রাখবেন, একটি top level domain কিনে blogger ব্লগে ব্যবহার করাটা বাধ্যতামূলক বা জরুরি না।

আপনি যদি চান তাহলে ব্লগারের ফ্রি blog URL address নিজের ব্লগে ব্যবহার করতে পারবেন।

তাহলে এখন সোজাসোজি “No thanks” লিংকে ক্লিক করুন।

স্টেপ ৬. আপনার ব্লগ তৈরী হয়েগেছে

এখন ওপরে no thanks লিংকে ক্লিক করার পর পরের পেজে আপনার blogger ব্লগ বানানো হয়েযাবে এবং আপনাকে নিজের নতুন ব্লগের dashboard দিয়ে দেয়া হবে।

ব্লগ খোলা হয়ে গেছে

দেখছেন আপনাকে এখন আপনার blogger dashboard দিয়ে দেয়া হবে।

Dashboard থেকে আপনি নিজের ব্লগের address এ গিয়ে ব্লগের design বা live view দেখতে পারবেন।

এর বাইরেও আপনি নিজের dashboard থেকে new post এ গিয়ে নতুন article লিখতে পারবেন বা তাকে publish করতে পারবেন। ব্লগ design করতে পারবেন, নতুন page বা categories যোগ করতে পারবেন বা Google adsense এর জন্য apply করে টাকা আয় করতে পারবেন।

সোজাসুজি বললে আপনি নিজের blogger dashboard থেকে ব্লগের সাথে জড়িত সবকিছুই করেনিতে পারবেন। কেবল ব্লগ বানানোর পর নিজে অপ্ল জিনিষগুলি বুঝার চেষ্টা করবেন।

স্টেপ ৭. নিজের ব্লগে গিয়ে দেখুন(ভিজিট ইউর ওন ব্লগ)

আপনার বানানো ব্লগ কেমন হয়েছে দেখতে বা ব্লগটিকে দেখতে হলে আপনি নিজের blogger dashboard থেকে ওপরে বামদিকে থাকা “view blog” অপসন ক্লিক করুন।এতে আপনি আপনার বানানো ব্লগটিকে দেখতে পারবেন।

আপনি যদি direct নিজের ব্লগে যেতে চান বা অন্য কেও যদি আপনার ব্লগে যেতে চান, তাহলে আপনার ব্লগের URL address যেটা আপনি ব্লগ বানানোর সময় দিয়েছিলেন সেটা ইন্টারনেটে সার্চ করলে আপনার ব্লগ পেয়ে যাবেন।

জীবনে প্রথমবার ব্লগ বানানোর পর কি যে আনন্দ লেগেছিল তা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। আপনার ব্লগের লিংক বিভিন্ন বন্ধুদের দিয়ে আপনার ব্লগে ভিজিটর টানতে পারেন । যত ভিজিটর আসবে তত লাভ আপনার।

আমার পরবর্তী লেখা হবে ব্লগ বানাতে ফ্রি সুন্দর সুন্দর থিম কোথায় পাবেন?
ফ্রি ব্লগ বানাতে সেরা ১০টি সাইট
অনলাইনে আয় করার জন্য ডোমেইন কিনে ব্লগ বানিয়ে বিক্রি করুন।
ব্লগের জন্য ২০ বেস্ট এ্যাফেলিয়েট প্রেগ্রাম
১০টি সেরা ব্লগিং সাইট
আপনার ব্লগকে কিভাবে দ্রুত জনপ্রিয় করে তুলতে পারেন।

আরো পড়ুন : ব্লগ / ওয়েবসাইট বানিয়ে অনলাইনে ইনকাম করবেন যেভাবে

Leave A Reply